...
ই-নলেজ অতিক্রম করলো লক্ষাধিক সদস্যের এক বিশাল মাইলফলক!বিস্তারিত...
person
!
প্রোফাইল আপডেট

মুসলিমরা আসার আগে ভারতবর্ষের সামাজিক অবস্থা কেমন ছিল ?

-:বিজ্ঞাপনের স্থান:-
ই-নলেজ এ বিজ্ঞাপন দিতে চান? - যোগাযোগ করুন।
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (অতিথি) (9 পয়েন্ট)   142 বার প্রদর্শিত
মুসলিমদের আসার আগে ভারতবর্ষ ছিলো কুসংস্কারাচ্ছন্ন একটি ভূখণ্ড। এখানে চালু ছিলো হাজারো কুপ্রথা। এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলো- বর্ণবৈষম্য, নরবলি ইত্যাদি। আর এই কুপ্রথাগুলোর শিকার ছিলো মূলত সমাজের সাধারণ ও নিম্নস্তরের মানুষগুলো। 

ভারতে মুসলিমরা আসার আগে উচ্চবর্ণের হিন্দু ও পুরোহিতরা সমাজের নিম্নস্তরের নারীদের উপর নানা রকম জুলুম নির্যাতন চালাতো। এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলো-

.

নগরবধূ প্রথা:

সে সময় কোন নারী যদি সুন্দরী হতো কিংবা সমাজের একাধিক লোক সেই নারীকে পেতে চাইতো, তাহলে রাষ্ট্রীয়ভাবে সেই নারীকে নগরবধূ ঘোষণা করা হতো। অর্থাৎ সে সবার স্ত্রী। একেকজন একেকরাতে তাকে পাবে। সে নগরের বউ। 

.

গুরুপ্রসাদী প্রথা:

হিন্দু সমাজে একসময় এধরণের রীতি প্রচলিত ছিল। এই প্রথা অনুসারে বিয়ের পর স্ত্রীর সাথে সহবাসের আগেই গুরুদেবের কাছে নিবেদন করতে হত নিজের স্ত্রীকে। এভাবে স্ত্রীকে নিবেদনের মাধ্যমে গুরুর কাছে নিজের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জাহির করতো শিষ্য। 

.

মন্দিরের সেবাদাসী প্রথা:

ভারতবর্ষে ইসলাম আসার পূর্বে নিম্নবর্ণের হিন্দু মেয়েরা বিয়ের আগে মন্দিরে সেবাদাসী হিসাবে কাজ করতো। মন্দির ধোয়া মোছা থেকে শুরু করে মন্দিরের ব্রাহ্মণ পুরোহিতদের শয্যাসঙ্গী হওয়া- প্রায় সব কাজই তাদের করতে হতো। এই নারীরা কিন্তু ব্রাহ্মণদের  কৃতদাসী ছিল না। বরং তারা শুধু তাদের বিয়ের আগের সময়টায় সেবাদাসী হয়ে মন্দিরে কাজ করতো। বিয়ের পর এই নিম্ন বর্ণের হিন্দু নারীরা আর মন্দিরে যেত না।

.

অঘোরী সাধু সমাজ:

এই সমাজের লোকেরা শ্মশানে মৃত ব্যক্তির সাথে সহবাস করে, মৃত ব্যক্তির মাথার খুলিতে খাবার খায়, মানুষের মলমূত্র খায়, নরবলি করে। তাদের মতে পৃথিবীর কোন কিছুই অপবিত্র নয় এবং এসবগুলোই ভালো কাজ। অর্থাৎ মৃত নারীদের সাথে সহবাস করার মতো বিকৃত কাজও তাদের কাছে 'ভালো কাজ'। অঘোরী সাধু সমাজ একেবারেই নির্মূল হয়ে যায়নি। এখনো ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে গোপনে এদের কার্যক্রম পরিচালিত হয়। 

.

এবার একটু চিন্তা করে দেখুন, মুসলিমদের আগমনের পূর্বে ভারতবর্ষে নারীদের অবস্থা কেমন ছিলো। জীবিত তো দূরের কথা এমনকি মৃত নারীরাও  কথিত গুরু-সাধকদের কামুক দৃষ্টি এড়াতে পারতো না। মুসলিমদের আগমনের পরই ভারতবর্ষের নারীরা পায় সম্মান ও মর্যাদা। মুসলিমরা আসার পর এই সকল কুপ্রথা তারা বন্ধ করে দেয়।

ভারতবর্ষে এসব কুপ্রথা বন্ধে মুসলিমদের অবদানের ব্যাপারে স্বামী বিবেকানন্দ দাস এজন্যেই বলেছিল- "ইসলাম তো ভারত বর্ষের নিপীড়িত জনগণের জন্য ঈশ্বরের আশীর্বাদ হয়ে এসেছিল।"

লিংক কপি হয়েছে!



আপনার উত্তর

উত্তর প্রদান করার পূর্বে জেনে রাখুন, ভুল/উদ্ভট/বিকৃত/অসম্পূর্ণ উত্তর ,মানসম্মত উত্তর থাকা সত্বেও উত্তর প্রদান এবং পূর্বের দেয়া কারো উত্তর পুনরাবৃত্তি করলে কোনো রকম সতর্ক ছাড়াই আপনার একাউন্ট ব্লক কিংবা বাতিল করা হবে।

এছাড়া নীতিমালা অমান্য করে উত্তর প্রদান করলে আপনার একাউন্ট পার্মানেন্টলি ব্লক করা হতে পারে।তাই অবশ্যই নীতিমালা মেনে উত্তর প্রদান করবেন।

উত্তর প্রদান করার পূর্বে অবশ্যই আপনি প্রশ্নটি ভালো করে পড়ে নিবেন এবং আপনি উক্ত প্রশ্নের উত্তর জানেন কিনা তা লক্ষ্য করুন; আপনি যদি উত্তর না জানেন তাহলে শুধু পয়েন্ট বাড়ানোর জন্য উত্তর প্রদান করবেন না।আপনার একটি ভুল উত্তর/পরামর্শ অন্য সদস্যদের বিভ্রান্ত করতে পারে এবং সমস্যা আরও বাড়িয়ে দিতে পারে।

মনে রাখবেন,

ই-নলেজ মানুষের উপকারের জন্য,
কারো ক্ষতির জন্য নয়।

তাই উত্তর দেয়ার পূর্বে নিশ্চিত হয়ে নিন আপনার উত্তরটি তথ্যবহুল যুক্তিযুক্ত কি না।দাম্পত্য জীবন, যৌন সমস্যা এগুলোর বিষয়ে পরামর্শ দেবার আগে ভাবুন আপনি এসকল বিষয়ে যথেষ্ট অভিজ্ঞ কি না।উত্তরে কোন ঔষধের নাম সরাসরি দেবার আগে সতর্ক থাকুন।

এই সকল নিয়মকানুন মেনে চলবেন মর্মে আপনি এখন নিশ্চিন্তে উত্তর প্রদান করতে পারেন।

ছবি অথবা ফাইল আপলোড করুন:

দৃশ্যমান:

প্রদর্শিতব্য নাম (ঐচ্ছিক) :
গোপনীয়তাঃ শুধুমাত্র এই অবহিতকরণ পাঠানোর জন্য আপনার ই-মেইল ঠিকানাটি ব্যবহৃত হবে ।

সংশ্লিষ্ট প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
"বিজ্ঞান ও প্রকৌশল" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Anisa Islam (বিশারদ) (1,746 পয়েন্ট)  
1 উত্তর
"ঈমান ও আক্বীদা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন আসাদুল্লাহ (বিশারদ) (4,625 পয়েন্ট)  
1 উত্তর
"পড়াশোনা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Ahsani Priya (বিশারদ) (3,812 পয়েন্ট)  

18,599 টি প্রশ্ন

19,479 টি উত্তর

2,572 টি মন্তব্য

102,942 জন সদস্য

ই-নলেজ কুয়েরি বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য ওয়েবসাইট। এখানে আপনি প্রশ্ন-উত্তর করার মাধ্যমে নিজের সমস্যার সমাধানের পাশাপাশি দিতে পারেন অন্যদের সমস্যার নির্ভরযোগ্য সমাধান! বিভিন্ন ব্যক্তিগত সমস্যা, পড়ালেখা, ধর্মীয় ব্যাখ্যা, বিজ্ঞান বিষয়ক, সাধারণ জ্ঞান, ইন্টারনেট, দৈনন্দিন নানান সমস্যা সহ সকল বিষয়ে প্রশ্ন-উত্তর করতে পারবেন! প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার পাশাপাশি অনলাইনে বাংলা ভাষায় উন্মুক্ত তথ্যভান্ডার গড়ে তোলা আমাদের লক্ষ্য!
তাই আজই যুক্ত হোন ই-নলেজে আর বাড়িয়ে দিন আপনার জ্ঞানের গভীরতা...!
Empowering Novel Learners with Zeal (Enolez)


  1. Sadik Prottay

    6 পয়েন্ট

    0 টি উত্তর

    0 মন্তব্য

    1 প্রশ্ন

  2. Mohammad Atik

    5 পয়েন্ট

    0 টি উত্তর

    1 মন্তব্য

    0 টি প্রশ্ন

  3. MdAUKhan

    4 পয়েন্ট

    1 উত্তর

    0 মন্তব্য

    0 টি প্রশ্ন

  4. Shompa

    1 পয়েন্ট

    0 টি উত্তর

    0 মন্তব্য

    1 প্রশ্ন

  5. রমজান

    1 পয়েন্ট

    0 টি উত্তর

    0 মন্তব্য

    1 প্রশ্ন

...